মোটা হবো কিভাবে – মোটা হওয়ার নিয়ম

মোটা হবো কিভাবে ? মোটা হওয়ার নিয়ম সম্পর্কে অনেকেই জানতে চান। কারণ যারা চিকন স্বাস্থ্যের অধিকারী তারা প্রত্যেকেই মোটা হওয়ার জন্য বিভিন্ন নিয়ম জানতে চান। কি কারণে মানুষ চিকন থাকে এবং কোন কোন খাবার বেশি খেলে বা কি কাজ করলে মোটা হয় এ বিষয়ে নিয়ে অনেকেই তথ্য জানতে চান। আজকের আর্টিকেলে আমরা যে বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করতে যাচ্ছি তা হলো সুস্থ সবল দেহের অধিকারী হবেন কিভাবে? এবং সুস্থ দেহের অধিকারী হতে কি কি নিয়ম জানা প্রয়োজন।

আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আশা করি আপনি খুব সহজেই এ বিষয়ে গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন। কারণ আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা যে বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করতে যাচ্ছি তা একজন সুস্থ-সবল মানুষের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একজন সুস্থ সকল মানুষ হতে হলে অবশ্যই এই নিয়মগুলো জানার অত্যন্ত জরুরী।

মোটা হবো কিভাবে

আশ্চর্যজনকভাবে হলেও এটাই সত্য যে সমাজের মোটা হলে যেমন কত রকমের কথা শুনতে হয় ঠিক তেমনি একটু চিকন হলেও এ সকল কথার সম্মুখীন হতে হয়। সেজন্য সুস্বাস্থ্যের জন্য নিজেকে তৈরি করা এবং অধিক চিকন স্বাস্থ্য থেকে একটু মোটা হওয়া অত্যন্ত জরুরী। অনেকেই সকলের সমস্যার সম্মুখীন হয় বলে গুগলের কাছে এ বিষয়ে সম্পর্কে জানতে চান। অনেকেই জানতে চাচ্ছেন আমি কিভাবে মোটা হব।

অনেকেই এতই পাতলা যে মনে হয়, হালকা বাতাসে উড়ে যাবেন। আবার অনেক পাতলা হওয়ার কারণে অনেকেই বলেন অপুষ্টিতে ভুগছে, অনেকে বলেন শুটকি বিভিন্নভাবে বিদ্রুপ করে। এ সকল বিভিন্ন তীর্যক মন্তব্য আর নেতিবাচক ঠাট্টার মশকরা জীবন অতিষ্ঠ হয়ে অনেকেই চাচ্ছেন একটু মোটা হতে।

কিন্তু বিষয় হলো ওজন বাড়াতে গিয়ে অনেকেই বিভিন্ন রকম ভুল করে থাকেন। আর এ সকল ভুলের কারণে শরীরে অনেক রকম সমস্যা হয়। শরীরসহ মানসিকভাবেও অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়। তাই আজকে আমরা সঠিক ভাবে মোটা হওয়ার উপায় গুলো আপনাদের জানাবো।

মোটা হওয়ার দশটি সঠিক নিয়ম

কিন্তু তারপরে আমরা আপনাদের জানাবো চিকন থাকার কারণ কি? কি কারনে মানুষের ওজন বৃদ্ধি পায় না। কেন একজন মানুষ চিকন থেকে যান? এটি বিভিন্ন কারণে হতে পারে। আপনি যদি এ বিষয়ে সম্পর্কে না জানেন তাহলে অযথাই আপনি দুশ্চিন্তা করছেন। কারণ এ সকল বিষয় সম্পর্কে জানলে হয়তো আপনার অনেক ভালো লাগবে। এবং নিজের শারীরিক বিষয় সম্পর্কে জেনে আপনার অত্যন্ত খুশি হবেন। তাই প্রত্যেকেরই নিজের বিষয় সম্পর্কে কিছুটা তথ্য জানা উচিত।

বিভিন্ন কারণে ওজন কম হতে পারে। কিন্তু কোন কোন কারণগুলোর জন্য ওজন কমে যেতে পারে বা ওজন কম থাকতে পারে এ বিষয়ে সম্পর্কে জানাটা অত্যন্ত জরুরী। তাই এ বিষয়ে সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য সহ এখানে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

More

  • আপনি যদি অনিয়মিতভাবে খাদ্য অভ্যাস গড়ে তোলেন
  • জেনেটিক কারণ
  • মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা
  • ডায়রিয়া
  • ক্যান্সার
  • ডায়াবেটিস
  • এইডস
  • হাইফাথাইরয়েডিজম
  • যক্ষা
  • কিডনি সমস্যা
  • ফুসফুসের সমস্যা
  • ড্রাগ নেওয়া

এ সকল ইত্যাদি বিষয়ের কারণে অনেকেই চিকন সুস্থতার অধিকারী হয়ে থাকেন। এবার আমরা মোটা হওয়ার কিছু বিষয় তথ্য আলোচনা করব।

চিকন স্বাস্থ্য মোটা করার সহজ উপায়

অবশ্যই মোটা হওয়ার জন্য আপনাকে কয়েকটি বিষয় জানা অত্যন্ত জরুরী। যে বিষয়গুলো আপনি না জানলে সঠিকভাবে সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন না। তাই সঠিক তথ্য জানতে পড়ুন।

  • প্রথমত ব্যায়াম করা
  • বারবার খাবার গ্রহণ করা
  • খাবারের কার্বোহাইড্রেড যুক্ত খাবার রাখা
  • বেশি ক্যালরি গ্রহণ
  • সঠিক পরিমাণ প্রোটিন গ্রহণ
  • ড্রাই ফ্রুটস খাওয়া
  • টেনশন মুক্ত থাকার চেষ্টা করা
  • পর্যাপ্ত ঘুমানো
  • ঘুমানোর আগে দুধ/মধু পান করা
  • ডায়েটে চকলেট এবং চিজ খাওয়া

মোটা হওয়ার জন্য অবশ্যই এ বিষয়গুলো মেনে চললে একজন ব্যক্তি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে পারবেন ইনশাল্লাহ,আশা করা যায়।

ব্যায়াম করা মোটা হওয়া

অনেকে ভাবেন শুধু ওজন কমাতেই ব্যায়ামের প্রয়োজন। কিন্তু এটা মোটেও ঠিক ধারনা নয়। ওজন কমাতে ব্যায়ামের প্রয়োজন হলেও ওজন বাড়ানোর জন্য ব্যায়াম অত্যন্ত জরুরি। তাই শুধু দৌড়ঝাঁপি যথেষ্ট নয়। দরকার প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করা।

বারবার পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা

কিছুক্ষণ পর পর খাবার গ্রহণ করার পর থেকেই উচিত। তারপরও যারা চিকন স্বাস্থ্যের অধিকারী মোটা হতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই বারবার খাবার গ্রহণ করবেন। ২ ঘন্টা অন্তর অন্তর অল্প করে কিছু খেতে হবে। কিন্তু যারা ওজন বৃদ্ধি করতে যাচ্ছেন তারা দুই ঘন্টা পর পর বেশি করে খেতে পারেন। এবং পুষ্টিকর খাবারগুলোতে অনেক ক্যালরি থাকে তাই এগুলো অবশ্যই সঠিক জেনে খাবার গ্রহণ করা উচিত।

খাবারের কার্বোহাইড্রেড যুক্ত খাবার রাখা

শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য কার্বোহাইড্রেট খুবই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ শরীরের ওজন বৃদ্ধি করে। ভাত ও রুটি কার্বোহাইড্রেড প্রধান উৎস। ভাত এবং রুটিতে অধিক কার্বোহাইড্রেট আছে বলেই আপনি অতিরিক্ত খাবেন তা নয়। তার সাথে আপনার ফ্যাটের বিষয়টিও দেখতে হবে। এতে আপনার ওজন যাতে অতিরিক্ত না হয় যদি কেউ খেয়াল রাখতে হবে। তাই পরিমাণ মতো খাবার খেতে হবে।

বেশি ক্যালরি যুক্ত খাবার গ্রহণ

চিকন স্বাস্থ্য মোটা করতে হলে অবশ্যই অধিক ক্যালোরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করতে হবে। পরিমাণের তুলনায় যদি আপনি খেলোরে যুক্ত খাবার বেশি না খান তাহলে আপনার জীবনের স্বাস্থ্য কখনোই মোটা হবে না। তাই খাবার একটু অতিরিক্ত মাত্রায় খেতে হবে তাহলে আপনার ওজন বৃদ্ধি থাকবে। তাই বলে এতটা অতিরিক্ত খাওয়া উচিত নয় যা আপনাকে অধিক স্বাস্থ্যবান করে তুলবে এবং আপনি মোটা হয়ে যাবেন।

সঠিক মাত্রই ড্রাই ফুড খাওয়া

ফ্রুট শরীরের ক্যালরির সঙ্গে সঙ্গে শরীরের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ এবং শরীরের রং ঠিক রাখতে সহায়তা করে। তাই প্রত্যেকেরই ফ্রুট খাওয়া অত্যন্ত জরুরি। আপনি যদি ভালো স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে চান তাহলে অবশ্যই সঠিক মাত্রায় ফ্রুট খাবেন। এতে আপনার স্বাস্থ্য অনেকটা ভালো থাকবে। এবং আপনি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে পারবেন এবং মোটা হবো কিভাবে এ নিয়ে আর দুশ্চিন্তা করতে হবে না।