শেখ রাসেল কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর

শেখ রাসেল কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর

শেখ রাসেল কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর সংগ্রহ করুন। শেখ রাসেল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের স্বাগতম। শেখ রাসেল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় যেসকল শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন তারা শেখ রাসেলের জীবনী সম্পর্কে অনেকেই তথ্য জানতে চাচ্ছেন। শেখ রাসেল এর জীবন বৃত্তান্ত। এবং কুইজ প্রতিযোগিতায় কি প্রশ্ন হতে পারে। এবং শেখ রাসেল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রশ্নের উত্তর এগুলো কি হবে। আপনি যদি শেখ রাসেল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় একজন প্রার্থী হন তাহলে কুইজ প্রতিযোগিতায় কি কি প্রশ্ন করা হতে পারে তার ধারণা আপনি এখান থেকে পাবেন। কুইজ প্রতিযোগিতার প্রশ্ন নিয়ে আমরা এই নিবন্ধনে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। তাই কুইজ প্রতিযোগিতার প্রশ্ন গুলো জানতে নিবন্ধটির মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

এক নজরে দেখুন,

  1. কুইজ প্রতিযোগিতার প্রশ্ন ও উত্তর
  2. শেখ রাসেল এর জীবন বৃত্তান্ত
  3. শেখ রাসেলের জন্ম
  4. শেখ রাসেলের দুরন্ত শৈশব
  5. শেখ রাসেল এর শিক্ষা জীবন
  6. শেখ রাসেলের স্বপ্ন ও ভ্রমণ
  7. শেখ রাসেলের পছন্দ ও খেলাধুলা
  8. শেখ রাসেলের উপর রচিত গ্রন্থ
  9. শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সাথে কাটানো সময়

শেখ রাসেল কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর

অনলাইন শেখ রাসেল কুইজ প্রতিযোগিতার প্রশ্ন কেমন হবে এই নিয়ে অনেকেই দ্বিধাদ্বন্ধে আছেন। তাই অনেকেই চিন্তিত যে শেখ রাসেল এর সম্পর্কে কি কি প্রশ্ন হবে বা কোন বিষয়ে প্রশ্ন হবে। তাই যারা জানেননা শেখ রাসেল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় কোন বিষয়ে প্রশ্ন হবে এবং কেমন প্রশ্ন হবে, তারা এখান থেকে প্রশ্ন ধরন এবং কেমন প্রশ্ন হবে সে বিষয়ে জেনে নিতে পারেন। কারণ আজকেরে নিবন্ধনের শেখ রাসেল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। অনলাইন শেখ রাসেল কুইজ প্রতিযোগিতায় রাসেলের জন্ম, রাসেলের দুরন্ত শৈশব, শেখ রাসেলের শিক্ষাজীবন, শেখ রাসেলের স্বপ্ন ও ভ্রমণ, শেখ রাসেলের পছন্দও খেলাধুলা, শেখ রাসেলের উপর নির্মিত রচিত গ্রন্থ, এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সঙ্গে কাটানো সময় এর ওপর ভিত্তি করে প্রশ্ন নির্ধারণ করা হবে।

শেখ রাসেল এর জীবন বৃত্তান্ত

কুইজ প্রতিযোগিতায় শেখ রাসেলের জীবনী সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য থেকে প্রশ্ন করা হবে। তাই শেখ রাসেলের জীবনী সম্পর্কে সকল শিক্ষার্থীদের জেনে নেওয়া উচিত। কিন্তু অনেকেই শেখ রাসেল সম্পর্কে তেমন কোনো তথ্য বা ধারণা নেই। তারা হয়তো চিন্তিত কিভাবে ছেলের জীবনী জানতে পারবো। যারা শেখ রাসেলের জীবনী সম্পর্কে জানতে চান তারা আজকের এই আর্টিকেল থেকে শেখ রাসেলের জীবনী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন। শেখ রাসেল এর জীবন বৃত্তান্ত ধারাবাহিকভাবে এখানে তুলে ধরা হয়েছে। তার জন্ম এবং শৈশব, শিক্ষাজীবন সহ সকল বিষয়ে প্রশ্ন বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়েছে। চলুন তাহলে দেরি না করে শেখ রাসেল এর জীবন বৃত্তান্ত জেনে নেওয়া যাক।

শেখ রাসেলের জন্ম প্রশ্ন ও উত্তর

রাসেল ১৯৬৪ সালে ১৮ অক্টোবর ধানমন্ডি 32 নম্বর বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে জন্মগ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সন্তানদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ। তাদের পাঁচ ভাইয়ের মধ্যে বর্তমানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ কামাল 1971 সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে মুক্তিবাহিনীর অন্যতম সংগঠক, শেখ জামাল বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা, এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিবিদ শেখ রেহেনা, এবং  শেখ রাসেল ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল ও কলেজের চতুর্থ শ্রেণীর একজন ছাত্র ছিলেন। ।

শেখ রাসেলের দুরন্ত শৈশব প্রশ্ন ও উত্তর

ধানমন্ডি লেকের পূর্ব পাড় 31 ও 32 নম্বর সড়ক। শেখ রাসেল শৈশবে সাইকেল চালাতে খুবই পছন্দ করতেন। সাইকেল চালাতে গিয়ে ব্রেক কষে অথবা মোড় ঘুরতে গিয়ে কখনো কখনো পড়ে যেতেন। আবার কেউ দেখে ফেলার আগেই তাড়াহুড়ো করে সাইকেলটি তুলে নিয়ে চোখের পলকে প্রজাপতির মতো উড়ে যেতেন। চঞ্চল বাতাসের মতো উড়ু উড়ু তুমুল প্রাণবন্ত একজন শিশু ছিলেন শেখ রাসেল। প্রধানমন্ত্রীর ছেলে হয়েও তার মনে ছিল না কোন অহংকার।

শেখ রাসেলের খাবারের প্রতি তেমন আগ্রহ ছিল না। কিন্তু রান্নাঘরের সবাই যখন খেতে বসতো তখন সবার সঙ্গে পিড়ি পেতে তিনিও খেতে বসতেন। তার পছন্দের লাল ফুল আঁকা থালায় করে ভাত খেতে পছন্দ করতেন। এবং তার প্রিয় কুকুরটিকে তার পছন্দের খাবার থেকে ভাগ দিতেন। এবং সকাল-বিকাল খোঁজ নিতেন পায়রা গুলোর। আর আদর করে হাত বোলাতে থাকে গরুর গায়ে।

গৃহ শিক্ষিকার সঙ্গে ছিল তার আদরে আবদারে সম্পর্ক। পরিবারের অন্য সদস্যদের মধ্য থেকেও তিনি ভালোবাসতেন। 1971 সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পরে সময় কাটানোর সুযোগ আসে রাসেলের জীবনে। কিন্তু সুযোগ পেলেই তিনি বাবার আশেপাশে থাকতেন। কখনো কখনো বিদেশ ভ্রমণের সময় ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে হতেন শেখ রাসেল। বিশ্ব নেতারা উচ্চশির আত্মবিশ্বাসী চাহনিতে মুগ্ধ হত। ১৬৬৯ সালে আন্দোলনের সময় শেখ রাসেলের বয়স ছিল মাত্র সাড়ে ৪ বছর। এবং মুক্তিযুদ্ধের সময় তার বয়স ছিল ৭ বছর।

শেখ রাসেল ছোট তে কালো পিঁপড়া দেখলেই ধরতে যেতেন এবং একদিন একটা বড় কাল ও বিষাক্ত কালো পিঁপড়া তাকে কামড়ে দেয়। এরপর থেকেই বড় কালো পিপড়া দেখলে তিনি বলতেন ‘ভুট্টো’। তার এই ভূট্টো পাকিস্তানি শাসকের বিরুদ্ধে অপমার বাঙালির মুক্তির স্লোগান শুনতে শুনতে আক্রমনকারী শক্তির নাম হিসেবে পরিচিত হয়েছিল। শেখ রাসেল তার 11 তম জন্মদিন এর আগেই দুস্থদের হাতে নির্মমভাবে খুন হন। শেখ রাসেলের এই শৈশবের জীবনী সম্পর্কে লিখেছেন প্রবীণ সাংবাদিক এবিএম মূসা।

শেখ রাসেল এর শিক্ষা জীবন প্রশ্ন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরী স্কুলে শেখ রাসেল মাত্র আড়াই বছর পড়াশোনা করেছেন। ভাষা আন্দোলন কে কেন্দ্র করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শেখ রাসেলকে কোন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে ভর্তি করার নি। স্কুলে পড়াকালীন সময়ে শেখ রাসেল ছিলেন অত্যন্ত বন্ধুত্বপূর্ণ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরী স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ছিলেন।

শেখ রাসেলের স্বপ্ন ও ভ্রমণ প্রশ্ন ও উত্তর

রাসেলের স্বপ্ন ছিল বড় হয়ে সে আর্মি হবে। তার ইচ্ছা ছিল বড় হয়ে আর্মি হয়ে দেশের জন্য কিছু করবে। তার এই স্বপ্ন দুষ্কৃতীদের কারণে পূরণ হয়নি। পরিবারের সাথে তাকেও সেদিন বিদায় নিতে হয়।

শেখ রাসেল শৈশবে বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেল একসঙ্গে জাপান সফর করেন। এভাবে শেখ রাসেল বিভিন্ন দেশ তার বাবার সঙ্গে ভ্রমণ করেছেন।

শেখ রাসেলের পছন্দ ও খেলাধুলা

রাসেল ছোটবেলায় অনেক চঞ্চল ছিলেন। সে তার বড় বোন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চুলের বেনি গুলো এলোমেলো করে দিতে অনেক পছন্দ করতেন। যখন সে চুলের বেনি গুলো নাড়াচাড়া করতো এবং তার মুখে লাগাতো তাতে সে খুব মজা পেত। রাসেল যখন কান্না করত তখন টেপ রেকর্ডার এ রেকর্ড করা তার কান্নার আওয়াজ তাকেই শোনাতেন। আর তার কান্না থেমে যেত। একদিন টেপ রেকর্ডার কান্নার আওয়াজ বাজাতে তার মা রান্নাঘর থেকে ছুটে আসেন এবং এসে দেখেন টেপ রেকর্ডারে রাসেলের কান্নার আওয়াজ হচ্ছে।

শেখ রাসেলের উপর রচিত গ্রন্থ প্রশ্ন ও উত্তর

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জীবনী নিয়ে তার জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী শেখ হাসিনা রচিত ’আমাদের ছোট রাসেল সোনা ’ প্রকাশ করা হয়। শেখ রাসেলের জীবনী নিয়ে নির্মিত বইটি 104 পৃষ্ঠার। এই বইটিতে আরো নতুন কিছু তথ্য সন্নিবেশিত হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন কারাগারে বন্দি থাকতেন তখন শেখ রাসেল বলেছেন এটা আব্বার বাড়ি। শেখ রাসেল মৃত্যুবরণ করেন 10 বছর 9 মাস 28 দিন বয়সে।

আশা করি আজকের এই নিবন্ধটির থেকে শেখ রাসেলের সম্পর্কে অনেক তথ্য আপনারা পেয়েছেন। আজকের এই তথ্যগুলো আপনার অনেক উপকারে আসবে। আপনি যদি এই নিবন্ধটির থেকে উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন।

4 thoughts on “শেখ রাসেল কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর”

Leave a Comment

Your email address will not be published.